বউ শাশুড়ীর একটি শিক্ষনীয় গল্প


বউ শাশুড়ীর একটি শিক্ষনীয় গল্প। বেশি বেশি শেয়ার করে সমাজ বদলাতে সহযোগীতা করুন।

একটি মেয়ে তার বাবার কাছে গিয়ে নালিশ করে বললঃ- বাবা,এ তুমি কেমন ঘরে আমার বিয়ে দিয়েছো ??

বাবাঃ- কেন কি হয়েছে, জামাই কি খারাপ ব্যবহার করেছে ?

মেয়েঃ- তোমার জামাই তো দুই মাস পর পর বাড়ি আসে। সমস্যার কারণ তো আমার শ্বাশুড়ী। সারাদিন বলে শুধু বৌমা এটা করো, বৌমা ওটা করো। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত শুধুই খিট খিট করে যান। আমার একটুও ভালো লাগে না।

বাবাঃ- আরে এই বয়সে মানুষ একটু এই রকম ই করেন।

মেয়েঃ- না বাবা, ঐ বুড়ি যতদিন পর্যন্ত না মরছে, আমি আর ঐ বাড়িতে ফিরে যাবো ই না।

বাবাঃ- এই রকম কথা বলতে নেই মা।

মেয়েঃ- তুমি তো ডাক্তার,এমন একটা কিছু ওষুধ দাও যাতে ঐ বুড়ি খুব তারাতারি মরে যায়।

বাবাঃ- আমি ডাক্তার, কসাই নয়,এ কাজ আমি করতে পারবো না।

মেয়েঃ- বাবা তুমি কি চাও না তোমার মেয়ে সুখে সংসার করুক ?

বাবাঃ- ( একটু চিন্তা করার পর)ঠিক আছে মা, তোর মুখের দিকে তাকিয়েই আজ আমি এই কাজ করছি,তোকে আমি একটা ওষুধ দিচ্ছি। এই ওষুধ টা নিয়মিত প্রতিদিন দুই ফোটা করে গরম দুধের সাথে খাওয়াবি। দেখবি এক মাসের মধ্যেই তোর শ্বাশুড়ী মারা যাবে। তবে এই এক মাস তুই তোর শ্বাশুরীর খুব সেবা করবি,এটা আমাকে কথা দে।

মেয়েঃ- ঠিক আছে বাবা, কথা দিলাম।

মেয়ে ঔষধ নিয়ে আনন্দের সাথে শ্বশুড় বাড়ি চলে গেল। গিয়েই তার শ্বাশুড়ীকে মন দিয়ে সেবা করতে লাগলো আর নিয়মিত ওষুধ দিতে থাকলো।

পাঁচ দিন পর শ্বাশুড়ী লক্ষ করলেন যে তার বৌমা আর আগের মত নেই। এখন সে তার আর তার কোন কথার ই অবাধ্য হয় না। আগের মত আর তার উপর বিরক্ত হয় না। আর খুবই বেশি সেবা করছে।

২০দিন পর শ্বাশুরী তার বৌমাকে নিজের মেয়ের মত ভালবাসতে লাগলো। তখন তিনি নিজেই বৌমার জন্য স্পেশাল মেনু বানিয়ে খাওয়ালেন।

বৌমাকে আর আগের মত কোন কাজের জন্য না বলে সেই কাজটা নিজেই সেরে নিতেন। বৌমার ঘুম ভাঙার অপেক্ষা না করে নিজেই চা বানিয়ে বৌমার কাছে গিয়ে বৌমার ঘুম ভাঙিয়ে তার সামনে চায়ের কাপটা এগিয়ে দিয়ে বললেনঃ- বৌমা চা খাও,দেখো আমি তোমার জন্য বানিয়েছি।

বৌমাঃ- কেন, মা আপনি আমাকে ডাকতে পারতেন তো।

শ্বাশুড়ীঃ- কি যে বলো বৌমা, তুমি সারাদিন ধরে এত খেটে আমার সেবা করছো আর আমি এই টুকু করতে পারবো না ??
দিনটা ছিল ২৭ তম।

এত দিনে শ্বাশুড়ী বৌমার সম্পর্ক টা মা ও মেয়ের সম্পর্কে পরিনত হয়ে গেছে। তখন মেয়েটি তার বাবার কাছে কাঁদতে কাঁদতে ছুটে এসে বললঃ- বাবা তুমি আমার শ্বাশুরী মাকে বাঁচাও। আর মাত্র তিন দিন বাকি। আমি চাই না যে আমার শ্বাশুরী আমাকে ছেড়ে চলে যাক। উনি যে ঠিক আমার মায়ের মত।

বাবাঃ- চোখের জল মুছে ফেল মা। আমি জানতাম একদিন তুই তোর ভুল ঠিকই বুঝবি, তাই আমি তোকে কোনো বিষ দিইনি ঐ ওষুধে তোর শ্বাশুরীর কোন ক্ষতি হবে না। বরং ঐ ওষুধ খেলে শরীরে পুষ্টি হবে। যা মা সুখের সংসার কর।

মেয়েটি হাসি মুখে বাবাকে সালাম করে বললোঃ 
"আই লাভ ইউ বাবা"

গল্পটি ভাল লাগলে শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন। বউ শাশুড়ীর দন্দ ঘরে ঘরে। এই গল্পটি পড়ে একটি বউ ও যদি ভালো হয়ে যায় তাহলে সেটাই আমাদের সার্থকতা।

Comments


sajib890 11 months ago

nice brothers

 
  • Like
  • Love
  • HaHa
  • WoW
  • Sad
  • Angry
 
Rauf Rafi 1 year ago

Very good

 
  • Like
  • Love
  • HaHa
  • WoW
  • Sad
  • Angry
 
Shalim Azad 3 years ago

Very good

 
  • Like
  • Love
  • HaHa
  • WoW
  • Sad
  • Angry
 
Md Jobayer Mahmud 3 years ago

ক্রাশ অর্থ কী? ক্রাশ (Crush) কাহাকে বলে?
ক্রাশ (Crush) ইংরেজি শব্দ, যার বাংলা হল ভেঙে যাওয়া বা চুড়মাড় হয়ে যাওয়া। কোন কিছুরে ধ্বংস বা ভেঙে গেছে, নষ্ট হয়েছে বোঝাতে ক্রাশ শব্দটি ব্যাবহার করা হয়।কাউকে প্রথম দেখার পর থেকে তার প্রতি অদ্ভুত একধরণের আকর্ষণবোধ করাকেই ক্রাশ বলে। এই সময়টাতে একধরণ...http://www.bestearnidea.com/what-is-crush/

 
  • Like
  • Love
  • HaHa
  • WoW
  • Sad
  • Angry
 
Md Jobayer Mahmud 3 years ago

অনেক শুন্দর গল্প এবং শিক্ষনিয়......

 
  • Like
  • Love
  • HaHa
  • WoW
  • Sad
  • Angry