এক মেয়ে গেছে সিডির
দোকানে-
Girl: নিউ ফিল্ম
কি আছে ?
দোকানদার: আই লাভ
ইউ!
Girl: স্টুপিড।
দোকানদার:
এটা আসেনি!
Girl: ইডিয়ট।
দোকানদার:
এটা বিক্রি হয়ে গেছে!
Girl: বোকা নাকি?
দোকানদার: এটার
শুটিং চলতেছে.........

ভারতের নায়ক অভিশেক বচ্চন
এর বাসায় বেড়াতে গেছেন
ইংরেজিতে দূর্বল বাংলাদেশী
নায়ক অনন্ত জলিল।
তো অনন্ত জলিলের সহকারী
তাকে বলল মিঃ অভিশেক বচ্চন
এর সাথে দেখা হলে আপনি শুধু
বলবেন>How are you?
এর জবাবে মিঃ অভিশেক বচ্চন
আপনাকে বলবেন> I am fine.
উত্তরে আপনি বলবেন> Me too.
কিন্তু, সাক্ষাতের সময় অনন্ত
জলিল ভুল করে
"HOW ARE YOU?"এর
পরিবর্তে অভিশেক বচ্চনকে
বলল> WHO ARE YOU?
ইংরেজিতে অনন্তের দূর্বলতা
ধরতে পেরে অভিশেক বচ্চন
ও একটু রসিকতা করে বলল>
I am the husband of
Aishwariya Rai.
উত্তরে অনন্ত জলিল বললেন>>>
.
.
. -
-
>Me too.

স্কুল পরিদর্শনে এসে ক্লাস নাইনের রুমে ঢুকলেন পরিদর্শক। তখন ইতিহাস ক্লাস চলছিলো। ফার্স্ট বয়কে ডেকে জিজ্ঞাসা করলেন, ‘বলোতো, সোমনাথের মন্দির কে ভেঙেছিলো?’
ফার্স্ট বয়: (ভয় পেয়ে) আমি ভাঙিনি স্যার, বিশ্বাস করেন, স্যার, আমি কোনোরকম ভাঙচুর করিনি! আমাকে মাফ করে দেন স্যার।
পরিদর্শক তখন ক্লাস টিচারের দিকে তাকিয়ে বলছেন, ‘কি বলে আপনার ছাত্র এসব উল্টা পাল্টা?’
শিক্ষক: উল্টা পাল্টা নয় স্যার। আমি ওকে সেই ছোটবেলা থেকেই চিনি। খুব ভালো ছেলে স্যার। মন্দির-মসজিদ ভাঙার মতো কোনো কাজ ও করতেই পারেনা।
পরিদর্শক রেগে গিয়ে হেডমাস্টারের কাছে জানতে চাইলেন, ‘এর একটা বিহিত করুন। আপনার সামনেই আপনার ছাত্র আর শিক্ষক মিলে এগুলো কি কথা বলছে?’
প্রধান শিক্ষক: আপনার হয়তো একটু ভুল হচ্ছে স্যার। আমি ইতিহাস শিক্ষককে ব্যক্তিগতভাবে চিনি। সৎ ও সত্যবাদী মানুষ। আমার ছাত্র যদি মন্দির ভাঙতো, তাহলে তিনি সেটা নিশ্চয়ই বলতেন। তাছাড়া আমার ছাত্ররাও খুব ভালো স্যার, ওরা জানালার কাঁচ পর্যন্ত ভাঙেনা, আর আপনি বলছেন মন্দির ভাঙা। আপনি সত্যি সত্যি ভুল করছেন স্যার।
তারপর,,
পরিদর্শকের কী হলো সেটা তো,,,, #ইতিহাস

আমি: বাবা,, আমি সাইকোলজি নিয়ে পড়ব....।
বাবা: সাইকোলজি নিয়ে পড়লে তুই পাগল হয়ে যাবি!!😲
আম্মু: ও (আমি) তো এমনিতেই পাগল....!!😒😒
আমি: 😓😓😓

মফিজ গেছে ডাক্তারের
কাছে। তো লাইনে দাড়িয়ে
আছে।
খানিকক্ষণ পর একটি লোক
ডাক্তারের চেম্বার থেকে
কাঁদতে কাঁদতে বেরিয়ে এলো।
মফিজ:আপনি কাঁদছেন কেন?
লোক:ডাক্তার অনেক হারামি।
সে বলল রক্ত টেস্ট করবে।কিন্তূ
হাতের আঙ্গুল কেটে ফেলল।
মফিজ কথা শুনে দিল এক দোড়।
পিছন থেকে ঐ লোক বলল আপনি
দৌড়চ্ছেন কেন?
মফিজ:আমি তো এসেছি
.
.
.
.
.
.
.
..
.
.
.
.
.
.
.
.
পেসাব পরীক্ষা করতে।
ডাক্তার যদি আমার ঐটা............হা হা হা

  • About
  • হাসলে মন ভালো থাকে।কর্ম ব্যস্ততার কারণে যারা হাসতে ভুলে গেছেন,,,,, তাদের হাসানোর প্রচেষ্টা মাত্র।।।।